সিলেটের আরেফিন টিলায় আরও ২ শ্রমিকের লাশ উদ্ধার

|

সিলেট ব্যুরো

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জের শাহ আরেফিন টিলায় অবৈধভাবে পাথর তুলতে গিয়ে মাটি চাপা পড়া অবস্থায় আরও ২ শ্রমিকের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার গভীর রাতে এ দু’টি মৃতদেহ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল। এ নিয়ে মাটি চাপায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল তিন জনে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন কমপক্ষে দুইজন। বুধবার দুপুরে কোম্পানীগঞ্জের শাহ আরেফিন টিলার বশির আহমদের গর্তে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে। এনিয়ে গত চারদিনে কেবল কোম্পানীগঞ্জেই মারা গেলেন ৮ শ্রমিক। আর গত ১৩ মাসে সিলেটের বিভিন্ন কোয়ারিতে অবৈধভাবে পাথর তুলতে গিয়ে মারা যায় ৫৮ শ্রমিক।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল লেইছ জানান, বুধবার দুপুরে কোম্পানীগঞ্জের শাহ আরেফিন টিলায় বশির আহমদের গর্তে অবৈধ ভাবে পাথর উত্তোলন করতে গিয়ে মাটি চাপা পড়ে কয়েকজন শ্রমিক। এদের মধ্যে গতকালই মারা যান এক জন। সন্ধ্যায় আরো দু’জন নিখোঁজের খবর পেয়ে উদ্ধারের জন্য ফায়ার সার্ভিসের সহায়তা চাওয়া হয়। সিলেট থেকে স্টেশন অফিসার যিশূ তালুকদারের নেতৃত্বে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা প্রায় তিন ঘন্টা অভিযান চালিয়ে রাত দেড়টার দিকে আরো দুটি মৃত দেহ উদ্ধার করে।

নিহতরা হলেন- সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার বান্দা গ্রামের মৃত আব্দুর নুরের ছেলে জহির হোসেন, জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ জীরদার গ্রামের মৃত জমির উদ্দিনের ছেলে আফাজ উদ্দিন ও একই গ্রামের নাছির উদ্দিনের ছেলে কাঁচা মিয়া । এনিয়ে গত চারদিনে কেবল কোম্পানীগঞ্জেই মারা গেলেন ৮ শ্রমিক।

এর আগে সর্বশেষ গত রোববার রাতে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জ কোয়ারিতে গর্ত ধসে ৫ শ্রমিক ও সোমবার সকালে জৈন্তাপুর উপজেলার শ্রীপুর কোয়ারিতে গর্ত ধসে ১ শ্রমিকের মৃত্যু হয়। ভোলাগঞ্জে ৫ শ্রমিক নিহতের ঘটনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী আমজাদসহ ৭ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করে পুলিশ। যদিও এখন কোয়ারির শ্রমিক সর্দার আব্দুর রউফ ছাড়া কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।









Leave a reply