ফতুল্লায় দু’টি চিতাবাঘ উদ্ধার

|

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি :

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার ভুইঘর এলাকা থেকে অভিযান চালিয়ে বিরল প্রজাতির দু’টি চিতাবাঘ উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১১। এঘটনায় জড়িত আন্তর্জাতিক বন্যপ্রাণী পাচারকারী চক্রের সক্রিয় দুই সদস্যকে আটক করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে রঘুনাখপুরের শওকত ইমরান মিঠুর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে খাঁচায় বন্দি বাঘ দু’টি উদ্ধার করা হয়। আটক করা হয় বাড়ির মালিক শওকত ইমরান মিঠু ও আরিফুল ইসলামকে।

র‌্যাবের দাবি, আন্তর্জাতিক বাজারে আটক চিতা বাঘ দু’টির দাম প্রায় ১ কোটি টাকা। তারা আরও দাবি করছেন, বিরল প্রজাতির চিতাবাঘ দু’টি আফ্রিকার কোন একটি দেশ থেকে কার্গো বিমানে করে বাংলাদেশ নিয়ে আসা হয়েছে। বাংলাদেশ হচ্ছে পাচার ট্রানজিট রুট। কারন বাংলাদেশে চিতাবাঘ নেই। পাশ্ববর্তী কোন একটি দেশে পাচার করার জন্য এটি নারায়ণগঞ্জের ভুইঘরে এনে রাখা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ র‌্যাব-১১ এর ভারপ্রাপ্ত( সিও) মেজর আশিক বিল্লাহ সাংবাদিকদের জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১ ফতুল্লার ভুইঘর রঘুনাথপুর দারুল সুন্না মাদ্রাসা সংলগ্ন শওকত ইমরান মিঠুর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে একটি পাকা ভবনের গেইটে তালা ঝোলানো ঘর থেকে খাঁচায় বন্দি দু’টি চিতা বাঘ উদ্ধার করে। এসময় বন্যপ্রাণী পাচারকারীদের আটক করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটকৃতরা স্বীকার করেছে তারা বন্যপ্রাণী পাচার চক্রের সাথে জড়িত। বাঘ দু’টি পাচার করার উদ্দেশ্যে পাঁচ ছয়দিন আগে আফ্রিকার একটি দেশ থেকে বিমানে করে ভুইঘরের রঘুনাথপুরের বাড়িতে এনে রাখা হয়েছে। এর আগে দু’টি বিরল প্রজাতির সাদা সিংহ তারা বিদেশে পাচার করেছে বলে র‌্যাবের কাছে স্বীকার করেছে। বাঘ দু’টি কাঠের বিশেষ খাঁচায় করে বিদেশ থেকে আনা হয়েছে।

এই চক্রের সাথে বিদেশী একটি চক্র জড়িত রয়েছে বলে ধারনা করছে র‍্যাব।

আটকৃতদের বিরুদ্ধে বন্যপ্রাণী সংরক্ষন আইনে থানায় মামলা দায়ের প্রস্তুুতি চলছে।

উদ্ধার করা চিতা বাঘ দু’টি আদালতের মাধ্যমে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরে হস্তান্তর করা হবে।

 









Leave a reply