পারিবারিক কবরস্থানে ফজলে রাব্বীর দাফন সম্পন্ন

|

গাইবান্ধা-৩ (সাদুল্যাপুর-পলাশবাড়ী) আসনের ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী ও সাবেক মন্ত্রী ড. টিআইএম ফজলে রাব্বী চৌধুরীর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। বিকালে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। এরআগে বাদ জুম্মা পলাশবাড়ীর তালুকজামিরা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

ড. টিআইএম ফজলে রাব্বী চৌধুরীর ভাতিজা রুপম চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, রাতেই ঢাকা থেকে মরহুমের লাশ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছায়। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত তার মরদেহ সর্বসাধারণের জন্য নিজ বাড়ির উঠানে রাখা হয়। পরে বাদ জুম্মা নামাজে জানাজা শেষে পারিপারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। জানাজার আগে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সামাজিক সংগঠনের নেতারা ফজলে রাব্বীর কফিনে ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানান।

এদিকে বর্ষীয়ান এ রাজনীতিবিদের মৃত্যুতে তার নির্বাচনী এলাকায় বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষসহ সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তাকে শেষবারের মতো একনজর দেখতে গ্রামের বাড়িতে হাজার হাজার মানুষ ভিড় করে।

এরআগে, বৃহস্পতিবার ভোররাতে ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন ড. ফজলে রাব্বী। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ফুসফুসে সংক্রমণ ও উচ্চ রক্তচাপসহ বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন।

ড. টিআইএম রাব্বী চৌধুরী ১৯৩৪ সালে ১ অক্টোবর গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার তালুকজামিরা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ৬ ভাই ও দুই বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন দ্বিতীয়। ১৯৫৭ সালে ফজলে রাব্বী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএসসি (অনার্স) ডিগ্রি লাভ করেন এবং কৃষি মন্ত্রণালয়ে যোগদান করেন। ১৯৬৩ সালে টেকসাস অ্যান্ড এস থেকে এমএসসি এবং ১৯৬৫ সালে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন। এরপর বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে অ্যাসিসটেন্ট প্রফেসর হিসেবে যোগদান করেন।

১৯৮৪ সালে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের জাতীয় পার্টিতে যোগদানের মাধ্যমে ফজলে রাব্বীর রাজনৈতিক জীবন শুরু। তিনি এরশাদের রাজনৈতিক উপদেষ্টাও ছিলেন। পরবর্তীতে নানা সময় তিনি ভূমিমন্ত্রী, ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রী ও সংস্থাপন মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। শেষদিকে কাজী জাফরের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টির একাংশে যোগ দেন তিনি। কাজী জাফর মারা যাওয়ার পর থেকে ড. ফজলে রাব্বী চৌধুরী দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। ১৯৮৬ সাল থেকে ২০০৮ পর্যন্ত গাইবান্ধা-৩ আসনে জাপা থেকে টানা ছয়বারের সংসদ সদস্য ছিলেন তিনি। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একই আসনে ঐক্যফ্রন্টের ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী ছিলেন ফজলে রাব্বী।

এদিকে ফজলে রাব্বীর মৃত্যুতে একাদশ সংসদ নির্বাচনে গাইবান্ধা-৩ আসনে নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। পরবর্তীতে পুনঃতফসিল ঘোষণা করে নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হবে বলে জানিয়েছে ইসি।









Leave a reply