বক্তব্যটা অসম্পূর্ণ ছিল, তাই অনেকে ভালোভাবে নেননি: অঞ্জনা

|

নারীদের ব্লাউজ নিয়ে করা এক মন্তব্যের জেরে চিত্রনায়িকা অঞ্জনা রহমান এখন আলোচনায়। বিশেষ করে সামাজিক মাধ্যমে তাকে নিয়ে গত দুই দিন ধরে বেশ শোরগোল হচ্ছে। একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের টকশোতে অঞ্জনা বর্তমান সরকারের উন্নয়ন নিয়ে কথা বলছিলেন। এক পর্যায়ে তিনি বলেন, “…কয়জন, কয়জন আছে, এই যে কাপড়, গার্মেন্টেসের কাপড়। যেভাবেই হোক। আজকাল গ্রামেগঞ্জে কিন্তু ব্লাউজ ছাড়া কেউ থাকে না। এটা কার উদ্যোগ? কার সফলতা? এটা আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সফলতা। কেউ কিন্তু, ব্লাউজ ছাড়া কেউ থাকে না।”

আলোচনার এই অংশের ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর শুরু হয় এ নিয়ে ‘ট্রল’ বা হাস্যরসের মহড়া। নানাজন নানা কথা বলতে থাকেন। এত আলোচনা-সমালোচনায় কিছুটা বিরক্ত অঞ্জনা রহমান। তবে নিজের বক্তব্য সঠিকভাবে ওই অনুষ্ঠানে উপস্থাপিত হয়নি বলেও স্বীকার করলেন তিনি।

যমুনা টিভির সাথে আলাপকালে সাবেক এই অভিনেত্রী বলেন, “ব্লাউজ নিয়ে করা মন্তব্যে আমার উত্তরটা অর্ধেক হয়ে গিয়েছিল, কারণ তখন উপস্থাপক অন্য আরেকটি প্রশ্নে চলে গিয়েছিলেন। ফলে আমার মন্তব্যটা শেষ হয়নি পুরোটা। আর আমি তো ৩০-৩৫ বছর পুরোনো সময়ের কথা বলেছি বর্তমানের কথা বলিনি।”

তিনি বলেন, “আমার কথাটা তো পজেটিভ ছিল। গত ৩০-৩৫ বছরের তুলনায় এখন দেশ আরো উন্নত হয়েছে। আমাদের দেশ এখন যেই উন্নয়নের ধারায় আছে সেই অর্থ সংকটটা তো এখন আর নেই। এটা কার জন্য? কার চেষ্টায়? কার সফলতায়? আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জন্য। প্রতিটি জায়গায় এখন কত উন্নত হয়েছে। আমি এই কথাটাই বলতে গিয়েছি যে ওই সময় মহিলাদের একটি ব্লাউজ পরারও সেই সুযোগটা ছিলনা। ৩০-৩৫ বছর আগের কথা, তারা যে কত কষ্ট করেছে। এখন প্রতিটি জায়গায় কত উন্নয়ন হয়েছে। যারা মন্তব্য করেছেন তারা মনে করেছেন আমি এখনকার কথা বলেছি। এখনকার কথা কেন বলবো? এখন তো দেশ উন্নয়নের দিকেই চলে গেছে। অর্থনৈতিক অভাবটা তো নাই, সেই সময় গ্রামে অভাব ছিল।”

অঞ্জনা ভাষ্য, “এখন গ্রামেগঞ্জে মহিলারা বড় বড় ওড়না গায়ে দেয়, ম্যাক্সিও পরে। এটা একটা উন্নয়নের ধারা না?  তখনতো একটা ব্লাউজও পরতে পারতো না। এখন গ্রামগঞ্জে মহিলারা রোজগারও করছেন, স্বামীর উপর আর নির্ভরশীল থাকছেন না। আমি এই কথাটাই বলতে চেয়েছি। আমি অঞ্জনা কথাটা অন্যভাবে বলিনি, আমার বক্তব্যটা সম্পূর্ণও ছিলনা তাই এটা যারা ভাইরাল করেছেন বা নেগেটিভলি নিয়েছেন তাদের কাছে আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত।”









Leave a reply