উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নাম ঘোষণা আ’লীগের

|

উপজেলা নির্বাচনের প্রথম ধাপের জন্য চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করলো আওয়ামী লীগ।

ধানমন্ডিতে দলের সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে নাম ঘোষণা করেন, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। প্রথম ধাপে ৮৭ উপজেলায় চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের জানান, পুরষ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ কাউকে মনোনয়ন দেবে না। উন্মুক্ত নির্বাচন করতে পারবেন দলের যে কেউ। এর আগে বেশ কয়েকদিন ধরে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডি কার্যালয়ে চলে মনোনয়ন ফরম বিক্রি ও জমা নেয়ার কার্যক্রম।

৮৭ উপজেলায় মনোনয়ন প্রাপ্তরা হলেন- সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলায় মোহাম্মদ রিয়াদ উদ্দিন, চৌহালীতে মো. ফারুক হোসেন, কাজীপুরে মো. খলিলুর রহমান সিরাজী, রায়গঞ্জে ইমরুল হোসেন তাং, উল্লাপাড়ায় মো. শফিকুল ইসলাম, শাহজাদপুরে মো. আজাদ রহমান, বেলকুচিতে মো. আলী আকন্দ, তাড়াশে সঞ্জিত কুমার কর্মকার।

জামালপুর সদর উপজেলায় মোহাম্মদ আবুল হোসেন, বকশীগঞ্জে এ কে এম সাইফুল ইসলাম, দেওয়ানগঞ্জে মো. আবুল কালাম আজাদ, মেলান্দহে মো. কামারুজ্জামান, মাদারগঞ্জে মো. ওবায়দুর রহমান বেলাল, সরিষাবাড়ীতে মো. গিয়াস উদ্দিন পাঠান, ইসলামপুরে এস এম জামাল আব্দুন নাছের।

নেত্রকোণা সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. তফসির উদ্দিন খান, খালিয়াজুরীতে গোলাম কিবরিয়া জব্বার, দূর্গাপুরে মোহাম্মদ এমদাদুল হক খান, মোহনগঞ্জে মো. শহীদ ইকবাল, বারহাট্টায় মো. গোলাম রসূল তালুকদার, কলমাকান্দায় মো. আব্দুল খালেক, মদনের মো. হাবিবুর রহমান, পূর্বধলার জাহিদুল ইসলাম সুজন, কেন্দুয়ার নুরুল ইসলাম।

হবিগঞ্জ সদরের মশিউর রহমান শামীম, নবীগঞ্জের আলমগীর চৌধুরী, লাখাইয়ের মশিউর আলম আজাদ, বাহুবলের আবদুল হাই, মাধবপুরের আতিকুর রহমান, চুনারুঘাটের আবদুল কাদির লস্কর, আজমিরীগঞ্জের মর্তুজা হাসান, বানিয়াচংয়ের আবুল কাশেম।

সুনামগঞ্জ সদরে খাইরুল হুদা, ধর্মপাশায় শামীম আহম্মেদ মুরাদ, ছাতকের ফজলুর রহমান, জামালগঞ্জের মো. ইউসুফ আল আজাদ, শাল্লার চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মাহমুদ, বিশ্বম্ভরপুরের মো. রফিকুল ইসলাম তালুকদার, দোয়ারাবাজারের আব্দুর রহিম, দিরাইয়ের প্রদীপ রায়, তাহিরপুরের করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবলু, দক্ষিণ সুনামগঞ্জের মো. আবুল কালাম।

লালমনিরহাট সদরে নজরুল হক পাটওয়ারী, পাটগ্রামের রুহুল আমিন বাবুল, হাতিবান্ধার লিয়াকত হোসেন, আদিতমারীর রফিকুল আলম, কালিগঞ্জের মাহবুবুজ্জামান আহম্মেদ।

কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরীর মোস্তফা জামান, উলিপুরের গোলাম হোসেন মন্টু, চিলমারীর শওকত আলী সরকার, রৌমারীর মো. মজিবুর রহমান, ভুরুঙ্গামারীর মো. নুরুন্নবী চৌধুরী, রাজারহাটের আবু নুর মো. আক্তারুজ্জামান, ফুলবাড়ির মো. আতাউর রহমান, রাজিবপুরের মো. শফিউল আলম, কুড়িগ্রাম সদরের আমান উদ্দিন আহমদ।

জয়পুরহাট সদরের এসএম সোলাইমান আলী, পাঁচবিবিরতে মনিরুল শহীদ মণ্ডল, আক্কেলপুরে আবদুস সালাম আকন্দ, কালাইয়ে মিনফুজুর রহমান, ক্ষেতলালে মোস্তাকিম মণ্ডল।

পবার মনসুর রহমান, তানোরের লুৎফর হায়দার রশিদ, পুঠিয়ার জি এম হিরা বাচ্চু, দুর্গাপুরের নজরুল ইসলাম, বাঘার মো. লায়েব উদ্দিন, গোদাবাড়িতে জাহাঙ্গীর আলম, চারঘাটে মো. ফখরুল ইসলাম, মোহনপুরে মো. আব্দুস সালাম, বাগমারায় মো. অনিল কুমার সরকার।

নাটোর সদরের শরীফুল ইসলাম রমজান, গুরুদাসপুরের জাহিদুল ইসলাম, বাগাতিপাড়ার সেকেন্দার রহমান, সিংড়ার শফিকুল ইসলাম, বড়াইগ্রামের সিদ্দিকুর রহমান পাটওয়ারী, লালপুরে ইসহাক আলী।

পঞ্চগড় জেলা থেকে পঞ্চগড় সদর-মো. আমিরুল ইসলাম, তেঁতুলিয়া-কাজী মাহামুদুর রহমান, দেবীগঞ্জ-মো. হাসনাৎ জামান চৌধুরী (জর্জ), বোদা-মো. ফারুক আলম, আটোয়ারি-মো. তৌহিদুল ইসলাম।

নীলফামারী জেলা থেকে নীলফামারী সদর-শাহিদ মাহমুদ, ডোমার-তোফায়েল আহমেদ, ডিমলা-মো. তবিবুল ইসলাম (বীর মুক্তিযোদ্ধা), সৈয়দপুর-মো. মোখছেদুল মোমিন, কিশোরগঞ্জ-মো. জাকির হোসেন বাবুল, জলঢাকা-মো. আনছার আলী (মিন্টু)।









Leave a reply