অফিসের সময় সরকারি চিকিৎসকদের প্রাইভেট প্র্যাকটিস কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট

|

ডিউটি আওয়ারে চিকিৎসকদের প্রাইভেট প্র্যাকটিস কেন অবৈধ নয়- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। আজ বিকেলে চিকিৎসকদের প্র্যাকটিস বন্ধে রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্টের বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও মো. কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ রুল জারি করেন।

একই সাথে চিকিৎসকদের সমন্বিত প্র্যাকটিসিং নীতিমালার জন্য স্বাধীন মেডিকেল কমিশন গঠনেরও নির্দেশ দেন আদালত। গত চার ফেব্রুয়ারি সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ আইনজীবী বাদী হয়ে অফিস চলাকালীন সময়ে সরকারি চিকিৎসকদের প্রাইভেট প্র্যাকটিস বন্ধের নির্দেশনা চিয়ে রিট করেছিলেন। তারও আগে প্রাইভেট প্র্যাকটিস বন্ধে সংশ্লিষ্টদের নোটিশ দিয়ে কোনো জবাব পায়নি এই আইনজীবীরা।

এছাড়াও শিশু আদালতে বিচারাধীন কোনো মামলায় শিশুর নাম, ঠিকানা, ছবি বা তার পরিচিতি প্রচারে গণমাধ্যমকে সতর্ক করেছেন সর্বোচ্চ আদালত। এক রুলের শুনানি শেষে বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

আদালতে রিট আবেদনকারী ব্যারিস্টার সৈয়দ সাইয়্যেদুল হক সুমনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী সাগুফতা তাবাসসুম আহমেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. মোখলেছুর রহমান। আর ডেইলি স্টারের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী কাজী এরশাদুল আলম।

২০১৮ সালের ৫ নভেম্বর ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টারে প্রকাশিত খবরে শিশু অপরাধীর পরিচিতি প্রকাশ করা হয়েছে, যা স্পষ্টত শিশু আইনের লঙ্ঘন।









Leave a reply