সেন্টমার্টিনকে মিয়ানমারের দাবি: পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে হাজির হয়েছেন রাষ্ট্রদূত

|

আবারও মিয়ানমারের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ। পুনরায় সেন্টমার্টিনসকে নিজেদের অংশ দাবি করেছে প্রতিবেশি দেশটি। রাষ্ট্রীয় তিনটি ওয়েবসাইটে বাংলাদেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপকে মানচিত্রে দেখিয়েছে তারা।

এ ঘটনায় আজ বৃহস্পতিবার বিকালে মিয়ানমারের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূতকে তলব করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তলবের প্রেক্ষিতে ইতোমধ্যে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে মন্ত্রণালয়ে হাজির হয়েছেন অং মিন্ট।

সেন্টমার্টিন কেবলই অপরিসীম সৌন্দর্য্যের লীলাভূমি নয়, কৌশলগত কারণেও ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ এই প্রবাল দ্বীপ। উনিশ শতকের আগ থেকেই এটি তৎকালীন ভারতবর্ষ তথা আজকের বাংলাদেশের অংশ। পুরনো মানচিত্রেও কখনো সেন্টমার্টিনকে নিজেদের বলে দাবি করেনি মিয়ানমার।

গত বছরের অক্টোবরে জনসংখ্যা অধিদপ্তরসহ কয়েকটি ওয়েবসাইটে সেন্টমার্টিনকে নিজেদের দেখায় মিয়ানমার। সে সময় রাষ্ট্রদূতকে তলব করলে তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন। যদিও ঢাকাকে এ বিষয়ে তখনও কিছুই জানায়নি নেইপিদো।

পরে জাতিসংঘকে বিষয়টি জানালে ভুল স্বীকার করেছিল সংস্থাটি। ওয়েবসাইট থেকে পরে সরানো হয়েছিল ইচ্ছাকৃতভাবে ভুল করা মিয়ানমারের সেই মানচিত্র।

সেই ভুল মানচিত্র আবারও দেখা যাচ্ছে মিয়ানমারের সরকারি ওয়েবসাইটে। সেন্টমার্টিন ছাড়াও শাহ পরীর দ্বীপকে তাদের অংশ বলে দেখানো হচ্ছে সেখানে।









Leave a reply