পর্দা দিয়ে ঘিরে দেয়া হল ‘যুবরাজ’র ঘর

|

কুমিল্লা প্রতিনিধি:

কুমিল্লা চিড়িয়াখানার রুগ্ন সিংহ ‘যুবরাজ’কে উন্নত চিকিৎসার জন্য পর্দা দিয়ে ঘিরে রাখা হয়েছে। আজ শনিবার দুপুরে কর্তৃপক্ষ জানায়, স্বাস্থ্যগত নিবিড় পর্যবেক্ষণের জন্য এখন থেকে ‘যুবরাজ’কে প্রদর্শন বন্ধ থাকবে।

চিড়িখানার পশুপাখিদের খাদ্য সরবরাহে নিয়োজিত শাহআলম জানান, যুবরাজ অসুস্থ হওয়ায় চিকিৎসকরা তার খাঁচাটি পর্দা দিয়ে ঘিরে রাখতে বলেছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা সিংহটির খাবার যথাসময়ে দেই। কিন্তু সে আগের মতো খেতে পারে না।’

তবে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার ভৌমিক জানান, যুবরাজ বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে ভুগছে। স্নায়ুতন্ত্র দুর্বল হয়ে গেছে। ঠিকমত খেতে পারছে না। আয়ুস্কাল শেষের দিকে আসায় সিংহটির এমন অবস্থা দাঁড়িয়েছে।

রুগ্ন সিংহটিকে নিয়ে গত ৩১ অক্টোবর যমুনা টেলিভিশনের টিম সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। ওই বিকালে জেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তার নেতৃত্বে ৪ সদস্যের বিশেষজ্ঞ দল যুবরাজকে দেখতে চিড়িয়াখানায় যায়। পরদিন সংবাদ প্রকাশের পর ঢাকা চিড়িয়াখানা থেকে ভেটেরিনারি সার্জনের নেতৃত্বে একটি বিবিশেষজ্ঞ দল এসে যুবরাজের খোঁজখবর নেও ও প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। এছাড়া বিশেষজ্ঞ দল অন্যান্য পশু-পাখিরও শারিরীক অবস্থার খোঁজ খবর নেন।

কুমিল্লা জেলার ভেটেরিনারি সার্জন ডা. নাজমুল হক জানান, বৃদ্ধ সিংহটি দীর্ঘদিন যাবৎ বার্ধক্যজনিত সমস্যায় ভুগছে। এর বয়স এখন প্রায় ১৭। সিংহের গড় আয়ু ১৩/১৪ বছর। আমরা সিংহটির চিকিৎসায় প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।

গণমাধ্যম ও সামাজিক মাধ্যমে যুবরাজের রুগ্ন ছবি প্রকাশের পর কুমিল্লা চিড়িয়াখানার ব্যবস্থাপনা নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে। প্রসঙ্গত, ১৯৮৬ সালে নগরীর কালিয়াজুড়ি এলাকায় জেলা প্রশাসকের বাংলোর পাশে ১০.১৫ একর জমিতে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল বোটানিক্যাল গার্ডেন ও চিড়িয়াখানা। বর্তমানে এ চিড়িয়াখানায় এটি সিংহ (যুবরাজ), ৯টি বানর, ১টি বন মোরগ, ২টি হরিণ ও একটি অজগর সাপ রয়েছে।









Leave a reply